মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও বীরাঙ্গনার সংখ্যা বাড়বে, বললেন গবেষকরা

২৯ মার্চ, ২০১৯   |   thepeoplesnews24

সংগৃহীত ছবি

নিউজ ডেস্ক:

মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ ও লাখ লাখ নারীর সম্ভ্রম বিসর্জন প্রতিষ্ঠিত ইতিহাস। এই ইতিহাস মুক্তিযুদ্ধের পবিত্র চেতনা ও গৌরবের মধ্যে মিশে আছে বলেই মনে করেন গণহত্যা নিয়ে কাজ করেন এমন গবেষকরা। তাদের মতে, মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী মানুষের সংখ্যা নেহাত আনুমানিক কোনো হিসেব নয় বরং এটি প্রতিষ্ঠিত ইতিহাস। গবেষকরা মনে করেন, মাঠপর্যায়ে জরিপ হলে মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা বেড়ে ৫০ লাখে দাঁড়াতে পারে। আর বীরাঙ্গনার সংখ্যাও বেড়ে ৭ লাখ হতে পারে।

২৭ মার্চ একটি বেসরকারি টেলিভিশনে মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যার স্পট নিয়ে কাজ করছেন- এমন একাধিক গবেষক জানান, মাঠের পরিসংখ্যানে মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা আরো বহুগুণ বেশি। যেখানে শহীদের সংখ্যা বেড়ে ৫০ লাখে দাঁড়াতে পারে। আর বীরাঙ্গনার সংখ্যা আমাদের ধারণাকেও ছাড়িয়ে যাবে।

এ প্রসঙ্গে এক গবেষক তার পরিসংখ্যানের চিত্র তুলে ধরে বলেন, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে প্রায় ৫০ থেকে ৫৫ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছেন। আর বীরাঙ্গনা অন্তত ৭ লাখ। এরইমধ্যে ১৮টি জেলাতেই পাওয়া গেছে ৪ হাজার ৬শ টি বধ্যভূমি বা কিলিংস্পট। জানা গেছে মৃত্যুর এই পরিসংখ্যান প্রকাশ করতে গণহত্যা স্পটের ম্যাপ তৈরি করেছেন গবেষকরা।

এমন স্পর্শকাতর বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদ পরিবারের একজন সদস্য গণমাধ্যমকে বলেন, পাকিস্তানি দখলদার-বাহিনীর কাছ থেকে মাতৃভূমি বাংলাদেশকে মুক্ত করতে বাঙালি জাতি নয় মাস যুদ্ধ করেছেন, এ ইতিহাস তর্কের ঊর্ধ্বে। যুদ্ধে ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছেন, লাখ লাখ নারী তাদের সর্বোচ্চ সম্মান বিসর্জন দিয়েছেন। এক কোটি মানুষ ভারতে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছেন, লাখ লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। এই প্রতিষ্ঠিত ইতিহাস নিঃসন্দেহে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে জাতির পবিত্র চেতনা ও গৌরবের মধ্যে মিশে আছে। শহীদের পরিসংখ্যান করা হলে সংখ্যায় ৩০ লাখ ছাড়িয়ে তা কল্পনার বাইরে যেতে পারে তা নিয়েও সন্দেহের অবকাশ নেই।

এদিকে গবেষকরা বলছেন, বহু গণকবর, বধ্যভূমি ও কিলিংস্পট এখনো অনাবিষ্কৃত। সেগুলোর সন্ধান পাওয়া গেলে ৫০ লাখেরও বেশি শহীদের সংখ্যার হিসেব মিলবে। মূলত ৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা সরকারি হিসেবে ৩০ লাখ। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধ গবেষকদের মতে এর সংখ্যা আরো বেশি।

ইতিহাস বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ৭১ সালের সেপ্টেম্বর মাসেই বিদেশি গণমাধ্যমগুলোতে মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যার সংখ্যা ২০ লাখ ছাড়িয়েছে বলে খবর প্রচারিত হয়েছিল। যেসব খবরে বলা হয়েছিল, কয়েক কোটি বাঙালি হত্যার মিশনে নেমেছে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। সুতরাং মাঠপর্যায়ে এ নিয়ে গবেষণা হলে তা নির্দিষ্ট সংখ্যার ধারণাকে অতিক্রম করতেই পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।






নামাজের সময়সূচি

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩