1. admin@thepeoplesnews24.com : admin :
  2. shohel.jugantor@gmail.com : alamin hosen : alamin hosen
বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে কাজিপুরে মানববন্ধন নির্বাচনী ব্যবস্থা প্রবর্তনে এবি পার্টির গোল টেবিল আলোচনা জ্বালানি তেলের দাম নির্ধারণ করতে হাইকোর্টের রুল বেলকুচিতে ভোট শেষে ভবনের পিছনে পাওয়া গেলো সিল মারা ব্যালট ও রেজাল্ট সিট সাবেক যুবলীগ নেতা খলিলুল্লাহ আজাদ মিল্টনের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় কমিউনিটি ক্লিনিকে সপ্তাহে ২দিনে ১হাজার জনসাধারণ পাচ্ছেন কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে জাতি গর্বিত সন্তানকে হারালো : বাংলাদেশ ন্যাপ গণতন্ত্রের জন্য গণমাধ্যম অনস্বীকার্য : স্পিকার কাল থেকে পলিথিনমুক্ত হচ্ছে চট্টগ্রামের তিন কাঁচাবাজার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৭ বাড়িতে টাঙানো হবে লাল পতাকা

কাজিপুরের কম্বল শিল্পের প্রসারে জেলা প্রশাসকদের ডিওলেটার দিলেন ইউএনও

মোঃশফিকুল ইসলাম, কাজিপুর প্রতিনিধি ঃ
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫৩ বার দেখা হয়েছে

সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার কম্বল শিল্প তথা ঝুটশিল্পের বিক্রি, প্রচার এবং প্রসারের লক্ষ্যে সকল জেলা প্রশাসককে আধা সরকারি পত্র(ডিও লেটার) পাঠিয়েছেন কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান সিদ্দিকী। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) এ সংক্রান্ত একটি পত্র ‘ইউএনও কাজিপুর’ পেজে আপলোড করা হয়েছে। এর আগে গত বছর তিনি সকল ইউএনওকে উদ্দেশ্য করে এই পত্র দিয়েছিলেন।
আশির দশকের শেষদিকে শুরু হওয়া এই শিল্প এখন এলাকার গন্ডি ছাড়িয়ে দেশের নানা প্রান্তের মানুষের চাহিদা পূরণ করে চলেছে। বিশেষ করে দেশের উত্তরাঞ্চলের ১৭ টি জেলায় শীতের কম্বল হিসেবে এখানকার কম্বলের চাহিদা ব্যাপক। প্রায় ছত্রিশ হাজার শিক্ষিত, স্বল্পশিক্ষিত কিংবা স্বশিক্ষিত নারী ও পুরুষ এই শিল্পের সাথে জড়িত। এসব দিক বিবেচনায় এনে কাজিপুরের ইউএনও দেশের সব ইউএনওদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে পত্র দিয়েছেন।
জেলা প্রশাসকদের উদ্দেশ্যে পত্রে ইউএনও উল্লেখ করেছেন, ‘জাতীয় চার নেতার অন্যতম সাবেক প্রধানমন্ত্রী শহিদ ক্যাপটেন এম মনসুর আলীর স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহ্যবাহী কাজিপুর উপজেলার শিমুলদাইড় বাজারকে কেন্দ্র করে মানসম্মত কম্বল তৈরি হচ্ছে। বেকার জনগোষ্ঠীর নতুন কর্মসংস্থান তৈরি করা এই শিল্পের বিকাশে এবং নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে ভূমিকা রাখতে এই কম্বল ব্যবহার করা যেতে পারে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে গুরুত্ব দিয়েছেন। সেক্ষেত্রে আপনার সহযোগিতা কামনা করছি। শীত মৌসুমে সরকারি, বেসরকারিভাবে কাজিপুর উপজেলা হতে স্বল্পমূল্যে মানসম্মত কম্বল সংগ্রহ করে এই শিল্পকে বিকশিত করতে আপনার আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি।’
ইউএনও জাহিদ হাসান সিদ্দিকী জানান,” গত বছর আমার পত্রে সাড়া দিয়েছেন অনেক ইউএনও এবং জেলা প্রশাসকগণ। এতে করে অন্য যেকোন সময়ের চেয়ে বেচাকেনা বেশি হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। তাই এবার জেলা প্রশাসকদের উদ্দেশ্যে প্রেরণ করলাম। এতে করে তাঁরাও সঠিক ও মানসম্মত পণ্যের খোঁজ পেলেন আর বিক্রিও বেশি হতে পারে। লাভ দু পক্ষেরই। তিনি আরও জানান“ কোন প্রকার ব্যাংক ঋণ সুবিধা, উপযোগী স্থান, পরিবেশ ও বাজার ব্যবস্থা ছাড়া ব্যক্তি উদ্যোগেই এই শিল্পে এখন অনেক বেকারের কর্মসংস্থান হয়েছে। সেক্ষেত্রে সরকারিভাবে তাদের বাজার সৃষ্টি করে দিতে পারলে এই শিল্পে কমপক্ষ্যে লক্ষাধিক বেকারের কর্মসংস্থান সম্ভব হবে। এ কারণেই আধা সরকারি পত্র দিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণের এই প্রচেষ্টা।” এ দিকে উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী “এ শিল্পের বিকাশ, প্রচার ও প্রসারের জন্য বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ ও দাতা সংস্থার সাথে যোগাযোগ করছেন বলে জানিয়েছেন।” শীতের শুরু থেকেই উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে কম্বল তৈরি ধুম পড়েছে,যা এবার অধিক হারে বিক্রি হবে বলে স্থানীয়রা জানান।

দয়া করে এই পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
©২০১৫ ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized BY Limon Kabir