শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ০৩:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
তাড়াশে পুজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন এমপির মৃত্যুতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.স.ম আব্দুর রহিম পাকনের শোক নিবেদিতপ্রাণ রাজনীতিক হারাল বাংলাদেশ : রাষ্ট্রপতি ২৩ জেলা বন্যাকবলিত হতে পারে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন মারা গেছেন ছাত্রলীগ নেতা নিহত ও সংঘর্ষ: জেলা আ’লীগ কার্যালয় ও দলীয় কার্যক্রম বন্ধ ঘোষনা মোংলায় সহকারি কমিশনার ভূমিসহ ৮ জনের করোনা শনাক্ত খাগড়াছড়িতে নতুন আরো ১৩ জনসহ মোট করোনা আক্রান্ত ৩১৬ জন গাইবান্ধায় করোনা ভাইরাসে নতুন করে ৫ জন আক্রান্ত তাড়াশ হাসপাতালে পিপিই,ফেস শিল্ড, ও মাস্ক প্রদান

বাবরি মসজিদ মামলার রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন

Reporter Name
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৬৬ জন দেখেছেন

অনলাইন ডেস্ক:

অযোধ্যার বিতর্কিত রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ মামলার রায় পুনর্বিবেচনা করতে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছে দেশটির প্রভাবশালী মুসলিম সংগঠন জমিয়ত উলেমা-ই-হিন্দ।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) সুপ্রিম কোর্টে রিভিউ আপিল করেন জমিয়ত উলেমা-ই-হিন্দের সভাপতি মওলানা সৈয়দ আশহাদ রাশিদি।

রিভিউ আপিলে রাশিদি বলেন, রায়ে কিছু আইনি সমস্যা রয়েছে। তবে পুরো রায় চ্যালেঞ্জ করা হচ্ছে না বলেও আবেদনে উল্লেখ করেন তিনি।

রাশিদি বলেছেন, এই মামলার প্রধান বিতর্কের বিষয় ছিল—মন্দির ধ্বংস করে মসজিদ বানানো হয়েছে। আদালত বলেছেন, মন্দির ভেঙে মসজিদ বানানোর কোনো প্রমাণ নেই। তাই মুসলমানদের দাবি প্রমাণিত হয়েছে। কিন্তু আদালতের রায় দেওয়া হয়েছে উল্টো।

গত ৯ নভেম্বর ভারতের সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যার বিতকির্ত জমি নিয়ে ঐতিহাসিক রায় দেন। ওই রায়ে আদালত ঘোষণা দেন, অযোধ্যার মূল বিতকির্ত জমিতে রামমন্দির বানানোর কোনো বাধা নেই। আদালতের রায়ে পুরো ২ দশমিক ৭৭ একর জমি রামমন্দির বানাতে দেওয়া হয়। তবে অযোধ্যাতেই একটি মসজিদ তৈরির জন্য পাঁচ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত।

১৯৯২ সালে উত্তর প্রদেশের অযোধ্যা শহরে কয়েক শতক আগে নির্মিত বাবরি মসজিদে হামলা চালিয়ে একাংশ ধ্বংস করে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সদস্যরা। এতে ভারতে দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে। হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলোর দাবি, বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির ছিল। রামমন্দির ধ্বংস করে মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে।

জমির উপর নিজেদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার অধিকারের লড়াই চলে যায় আদালতে। ২০১০ সালে এলাহাবাদ উচ্চ আদালত জমির তিন ভাগের দুই ভাগ দেয় রামমন্দিরের পক্ষের দাবিদারদের, আর এক ভাগ বাবরি মসজিদ পক্ষকে। কোনো পক্ষই রায়ে সন্তুষ্ট না হলে সুপ্রিম কোর্টে গড়ায় মামলা। এক দশক পর গত ৯ নভেম্বর ঐতিহাসিক রায়টি দেন ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট। ওই রায়ে রামমন্দিরের পক্ষের সংগঠনগুলো খুশি হলেও, বাবরি মসজিদ পক্ষ নাখোশ হয়।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর বিভিন্ন মুসলিম সংগঠন জানিয়েছিল, তারা রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন করবে। এর আগে সর্বভারতীয় মুসলিম ব্যক্তিগত আইন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, ডিসেম্বরের মধ্যে তারা রায় চ্যালেঞ্জ করে আবেদন করবে।

সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আর নিউজ দেখুন
© All rights reserved 2015- 2020 thepeoplesnews24

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন কৃত।

Design & Developed By: Limon Kabir
freelancerzone