বৃহস্পতিবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, বিকাল ৩:৩৩
রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়ঃ ডিসেম্বর, ৩, ২০১৯, ১২:০১ পূর্বাহ্ণ
  • 8 বার দেখা হয়েছে

মোঃ শফিকুল ইসলাম, কাজিপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
আজ ৩ ডিসেম্বর, ১৯৭১ সালে আজকের দিনে তৎকালীন সিরাজগঞ্জ মহুকুমা অন্তগত বতর্মান কাজিপুর উপজেলা পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মক সমরের মাধ্যমে মুক্ত করেছিলেন মুক্তিযোদ্ধারা। ৭১’র মুক্তিযুদ্ধ কালীন সময়ে ৭নং সেক্টরের এই এলাকায় আবহাওয়া ও সিরাজগঞ্জ মহুকুমা কমান্ডার আমীর হোসেন ভুলুর সাংগঠনিক দক্ষতার কারণে এবং কাজিপুরের যুদ্ধকালীন কমান্ডার লুৎফর রহমানের নেতৃত্বে পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরা খুব একটা সুবিধা পায়নি। তারপর ও লুটপাট, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ, ছিল নিয়মিত ঘটনা। কাজিপুরে পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরদের অন্যতম নৃশংস ঘটনা হলো “বড়ই তলা যুদ্ধ”।

১৪ নভেম্বর সংগঠিত এই যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা রবি লাল, সুজাবত আলী ও আ: সামাদ এবং ৭৬ জন সাধারণ গ্রামবাসী শহীদ হন। সেদিনের অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও নির্যাতনের দু:সহ স্মৃতি নিয়ে এখনো অনেকেই বেঁচে আছে। বড়ইতলা নৃশংসতার পর মুক্তিযোদ্ধারা সিদ্ধান্ত নেয় কাজিপুর পাক হানাদার বাহিনীর প্রধান ক্যাম্প কজিপুর থানা আক্রমণ করার।সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্থানীয় ও আশপাশের এলাকা থেকে আগত মুক্তিযোদ্ধারা ক্যাম্প ঘিরে বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান নিয়ে ২রা ডিসেম্বর বিকেলে আক্রমণ চালায়। যুদ্ধের এক পর্যায়ে ৩রা ডিসেম্বর ভোর রাতে পাকিস্তানের সুসজ্জিত প্রশিক্ষিত বাহিনী যমুনা নদী দিয়ে নৌকা যোগে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়।যুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া ও মোজাম্মেল শহীদ হন।এই যুদ্ধের মধ্যে দিয়ে কাজিপুর শত্রু মুক্ত হয়।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ পড়ুন