শনিবার, ১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, রাত ৯:১২
রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়ঃ ডিসেম্বর, ১, ২০১৯, ৬:১৮ অপরাহ্ণ
  • 13 বার দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক:
হাইকোর্টের তলবে হাজির হয়েছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলম। মোবাইল কোর্ট পরিচালনার পর সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে ১২০ দিনেও আদেশের অনুলিপি না দেওয়ায় ব্যাখ্যা দিতে তাকে তলব করেন হাইকোর্ট।

রবিবার (১ ডিসেম্বর) নির্ধারিত দিনে উচ্চ আদালতের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে নভেম্বরের ১৮ তারিখে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলমকে তলব করেন হাইকোর্ট।

সাজা দেওয়ার ১২০ দিন পরও আদেশের কপি দেওয়ার ক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে মো. মিজান মিয়া নভেম্বরের ১৭ তারিখে রিটটি করেন। এর আগে এ বছরের ১৮ জুলাই অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত মিজান মিয়াকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের তপু এন্টারপ্রাইজ নামের একটি পশুখাদ্য প্রস্তুতকরণ কারখানার ব্যবস্থাপক মিজান। রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এম সাখাওয়াত হোসেন খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম নারায়ণগঞ্জের সিদ্দিরগঞ্জের বটতলা খালপাড়ের তপু এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার মো. মিজান মিয়াকে মৎস্য ও পশু খাদ্য আইন ২০১০ এর অধীনে ১৮ জুলাই এক বছরের সাজা দেন জানিয়ে আইনজীবী ব্যারিস্টার সাখাওয়াত হোসাইন খান বলেন, এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। ২১ জুলাই নারায়ণগঞ্জ বারের আইনজীবী অঞ্জন দাসের মাধ্যমে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে আপিলের জন্য আদেশের অনুলিপি চেয়ে আবেদন করা হয়। কিন্তু অদ্যাবধি এটা পাওয়া যায়নি। এ কারণে আপিলও করতে পারেননি মিজান মিয়া। আপিল করা আবেদনকারীর মৌলিক অধিকার।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ পড়ুন