বৃহস্পতিবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, বিকাল ৩:১৫
রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়ঃ ডিসেম্বর, ১, ২০১৯, ৬:১৫ অপরাহ্ণ
  • 11 বার দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক:
বৈধ পথে স্বর্ণ আমদানির লাইসেন্স পেতে যাচ্ছে একটি বেসরকারি ব্যাংকসহ ১৮টি প্রতিষ্ঠান। যাচাই-বাছাই করার পর এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে লাইসেন্স দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রত্যেককে দুই বছরের জন্য এই লাইসেন্স দেওয়া হচ্ছে। এ সময়ের মধ্যে তাদের আমদানি কার্যক্রম সন্তোষজনক হলে পরবর্তীকালে লাইসেন্স নবায়ন করা হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

রবিবার (১ ডিসেম্বর) বিকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মো. খুরশীদ ওয়াহাব মনোনীত প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিদের হাতে লাইসেন্সের অনুমোদন কপি হস্তান্তর করবেন।

বিভিন্ন বিষয় বিবেচনায় নিয়ে যোগ্যতার নিরিখে যারা এগিয়ে রয়েছে এমন ১৮টি প্রতিষ্ঠানকে প্রথম ধাপে লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, ‘যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া শেষে প্রথম ধাপে ১৮টি প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। ভবিষ্যতে যদি দেখি এই ১৮টি প্রতিষ্ঠান প্রয়োজনের তুলনায় কম, সে ক্ষেত্রে এই সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে। আমরা মনে করছি দেশে স্বর্ণের যে বার্ষিক চাহিদা রয়েছে, সেটা আমদানির মাধ্যমে পূরণ করার জন্য এই ১৮টি প্রতিষ্ঠানই যথেষ্ঠ।’

স্বর্ণ আমদানির লাইসেন্সের জন্য যে ১৮টি প্রতিষ্ঠান প্রথম ধাপে মনোনীত হয়েছে তাদের নাম প্রকাশ করতে রাজি হয়নি বাংলাদেশ ব্যাংক।

তবে স্বর্ণ আমদানির লাইসেন্সের তালিকায় আমিন জুয়েলার্স, ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড, শারমিন জুয়েলার্স ও ভেনাস জুয়েলার্সের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম শোনা যাচ্ছে। পাশাপাশি একমাত্র ব্যাংক হিসেবে রয়েছে বেসরকারি মধুমতি ব্যাংক।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগারওয়ালা জানান, বাংলাদেশ ব্যাংক আমাদের জানিয়েছে যাচাই-বাছাই শেষে প্রথম ধাপে ১৮টি প্রতিষ্ঠানকে স্বর্ণ আমদানির লাইসেন্সের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। রবিবার বিকালে লাইসেন্সের অনুমোদন কপি নিতে মনোনীতদের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।

দেশের অভ্যন্তরীণ বাজারে বার্ষিক প্রায় ১৫ থেকে ২০ মেট্রিক টন স্বর্ণের চাহিদা রয়েছে। কিন্তু বৈধ পথে স্বর্ণ আমদানির সুযোগ না থাকায় প্রায় সিংহভাগ পূরণ হচ্ছে চোরাচালানের মাধ্যম আসা স্বর্ণ দিয়েই। এতে প্রতি বছর বড় অঙ্কের রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার। এই প্রেক্ষাপটে গত বছরের অক্টোবরে স্বর্ণ আমদানির নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়। ওই নীতিমালার আওতায় স্বর্ণ আমদানির ডিলারশিপের লাইসেন্স দিতে চলতি বছরের ১৯ মার্চ থেকে আবেদন চেয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ পড়ুন