মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১২:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নাগরপুরে মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীসহ ৩ বাড়ী নদী গর্ভে বিলিন চৌহালীতে পূজা উৎযাপন কমটির সাথে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা পলাশবাড়ীতে কাঁচা বাজারে মোবাইলকোর্ট পরিচালনা- জরিমানা নওগাঁয় জেলা বিএনপির ভোট কারচুপির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ খানসামা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক পদ-প্রার্থী সাজ্জাদের সিভি জমা ফুলপুরে ২ ইউপিতে উপনির্বাচন : কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে নির্বাচনী সরঞ্জাম বীরগঞ্জে ফাইলেরিয়া রোগের নির্মূলের জন্য প্রচারের কর্মশালা শেরপুরে আলুর মজুদ রোধে কোল্ড স্টোর পরিদর্শন করলেন ইউএনও কাজিপুরে ফাইলেরিয়া রোগীর পরিচর্যা ও করণীয় বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত পাকেরহাটে মিডল্যান্ড ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং সেন্টারের উদ্বোধন

চারঘাটে কিন্ডারগার্টেন স্কুল বন্ধ থাকায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন শিক্ষকগন করোনা প্রাদুর্ভাব

আতিকুর রহমান, চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৭৮ জন দেখেছেন


সারা দেশের ন্যায়, রাজশাহীর চারঘাটে করোনা ভাইরাস রোগ প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাময়িক বন্ধ রয়েছে। এরপর থেকে অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি উপজেলা কিন্ডারগার্টেগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। ফলে কিন্ডারগার্টেন স্কুলের সঙ্গে জড়িত সকল শিক্ষকগনের আয় উপার্জন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন।


সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার চারঘাট, সরদহ, ইউসুফপুর ও নন্দনগাছিতে প্রায় ১৪টি কিন্ডারগার্টেন স্কুল রয়েছে। প্রায় প্রতিটি স্কুলে কেজি প্রথমশ্রেনী থেকে অষ্টমশ্রেনী পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। শিক্ষা অধিদপ্তরের অনুমতি নিয়ে এই সকল কির্ডারগার্টেন স্কুলগুলোতে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালিত হয় বলে জানিয়েছেন নুরুল মেমোরিয়াল একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মো: সাইদুর রহমান। তিনি আরও বলেন পাঠদান অনুমতির পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জন্য সরকার থেকে প্রয়োজনীয় বই সরবরাহ করে থাকে। কিন্তু করোনা ভাইরাস সংক্রামন প্রতিরোধে সরকারী সিদ্ধান্ত মোতাবেক অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি উপজেলায় আমাদের সকল কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো গত মার্চ মাস থেকে শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। স্কুলের অধিকাংশ শিক্ষকগনই স্কুলের শিক্ষকতা পেশার উপর নির্ভরশীল। স্কুলের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকার ফলে শিক্ষার্থীদের নির্ধারিত মাসিক বেতন নেওয়া হয় না। এরফলে শিক্ষকদের বেতন দেয়া বন্ধ রয়েছে।

একই কথা বলেন, সরদহ মডেল স্কুলের পরিচালক সাইফুল ইসলাম। তিনি আরও বলেন, উপজেলার ১৪টি স্কুলে প্রায় ৩ হাজার ৫ শত ছাত্র-ছাত্রী ও ৩ শত জন শিক্ষক-শিক্ষিকা কর্মরত রয়েছেন। শিক্ষকদের অধিকাংশ এই শিক্ষকতা পেশার উপর অর্জিত আয়ে সংসারের ব্যয় নির্বাহ করে থাকে। প্রথম কয়েক মাস স্কুল কতর্ৃপক্ষ কর্মরত শিক্ষকদের সহযোগীতা করলেও তা আর সম্ভবপর হয়ে উঠছেনা বলে তিনি জানান। ফলে অনেকে সংসারের খরচ যোগান দেয়ার জন্য অন্যের জমিতে কাজ করছেন।


করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত সরকারী ঘোষিত প্রনোদনার জন্য শিক্ষকদের আর্থিক সহায়তার জন্য গত মার্চ মাসে উপজেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করলেও এখন পর্যন্ত কোন সহযোগীতা পাওয়া যায়নি বলে জানান নন্দনগাছি প্রি ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক মফিজুল ইসলাম। স্বল্প পরিসরে হলেও আমাদের স্কুলে পাঠদানের অনুমতি দেয়া হোক অথবা শিক্ষকদের প্রনোদনার আওতায় আর্থিক সহায়তার বিষয়টি গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করার জন্য তিনি উপজেলা প্রশাসনকে অনুরোধ জানান।


এব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রশিদা ইয়াসমিন বলেন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষকদের আর্থিক সহযোগীতার বিষয়ে কোন সুনির্দিষ্ট তথ্য আমাদের কাছে নেই তবে গত রমজান মাসে উপজেলা প্রশাসনের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে ৫টি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের নামের তালিকা দেয়া হয়েছিল। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দা সামিরা বলেন, আমরা ইতিমধ্যে কিছু সংখ্যক স্কুলকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সরকারী অনুদান দেয়া হয়েছে । পরবর্তীতে সরকারী পর্যায় থেকে কোন নির্দেশনা পাওয়া যায়নি তবে পেলে পর্যায়ক্রমে প্রত্যেকটি স্কুলে সহযোগীতা দেয়া হবে বলে তিনি জানান।

সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আর নিউজ দেখুন
© All rights reserved 2015- 2020 thepeoplesnews24

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন কৃত।

Design & Developed By: Limon Kabir
freelancerzone