শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০১:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জে ইসলামী আন্দোলনের প্রতিবাদ-সমাবেশ প্রেমের ফাঁদে ফেলে কিশোরীকে ধর্ষণ,ধর্ষক গ্রেফতার সাদুল্লাপুরে অতিরিক্ত দামে আলু বিক্রির দায়ে ৪ ব্যবসায়ির জরিমানা আদায় রায়গঞ্জে খাস জমি দখল করে রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ টাঙ্গাইলে হত্যা মামলায় ২২ বছর পর ছয়জনের যাবজ্জীবন, ছয়জন খালাস চরাঞ্চলের মানুষের দুঃখ দূর্দশা লাঘবে চর উন্নয়ন বোর্ড করা দরকার —ডেপুটি স্পীকার মোহাম্মদ নাসিম ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থা ও বিশ্বস্ত লড়াকু নৈতিক- এস,এম কামাল কাজিপুরে মা ইলিশ সংরক্ষণে ৬৫ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল ধ্বংস মোহাম্মদ নাসিম ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থা ও বিশ্বস্ত লড়াকু নৈতিক- এস,এম কামাল নওগাঁয় ভিক্ষুকদের মাঝে লভ্যাংশের নগদ অর্থ বিতরন

“শিক্ষাক্ষেত্রে করোনার ছোবল”

তুলিকা সমদ্দার
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩১১ জন দেখেছেন


কোভিড-১৯ বর্তমানে সবার কাছেই পরিচিত একটি শব্দ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কোভিড-১৯ কে মহামারী হিসেবে উল্লেখ করেছে। এই করোনা মহামারী মানুষকে দিন দিন হতাশাগ্রস্থ করে ফেলছে, যার অনেক বড় একটা প্রভাব পড়ছে শিক্ষাক্ষেত্রে। বর্তমান এই অস্থির সময়েও আমাদের উচিত শিক্ষার্থীদের সঠিক শিক্ষাদান ও তাদের দক্ষতা বৃদ্ধি করা।


বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী গ্রামে বসবাস করে এবং সুবিধাবঞ্ছিত। তারা অনলাইন শিক্ষাপদ্ধতি নিয়ে অনভিজ্ঞ। তাছাড়া পারিবারিক অসচেতনতার কারণে করোনা সময়ে তারা যথেষ্ট পিছিয়ে পড়েছে। দীর্ঘসময় এর ছুটি ও স্কুল, কলেজ বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীদের মাঝে তৈরি হয়েছে পড়াশুনা নিয়ে উদাসীনতা। পড়াশুনার প্রতি এসেছে অলসতা। যা তাদের শিক্ষাজীবনের জন্য হুমকিস্বরূপ। শহরের বেশ কিছু নামীদামী স্কুল কলেজে অনলাইন ক্লাস চলছে। এটি একদিক থেকে অবশ্যই ইতিবাচক। কিন্তু দীর্ঘসময়ের ছুটি শিক্ষার্থীদের মানসিক বিষণ্ণতায় ফেলে দিচ্ছে। ঘরের বাইরে বের হতে না পারায়ে তারা তাদের অবসর সময় গেইমস খেলে কাটাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গেইমসে বেশিরভাগ সময় কাটানোর ফলে তারা তাদের পড়াশুনার প্রতি অসচেতন হয়ে যাচ্ছে। তারা নিয়মিত অনলাইন ক্লাস করছে ঠিকি কিন্তু যথাযথ শিক্ষা তারা পাচ্ছে না, আর পেলেও তারা নিচ্ছে না। পরিক্ষা না হওয়া তে তারা আরও পিছিয়ে পড়ছে। যা ভবিষ্যতের জন্য হুমকিস্বরূপ এবং নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

এখন যদি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কথায় আসি তাহলেও এ সমস্যাগুলো চলে আসবে। প্রায় সব পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইন ক্লাস হচ্ছে। কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষাও শেষ হয়ে গেছে। এখন কথা হচ্ছে, গ্রাজুয়েটদের কি উপযুক্ত চাকুরী দেয়া হবে? তারা কি তাদের কাজের দক্ষতা অনলাইন ক্লাস ও পরিক্ষা দিয়ে উল্লতি করতে পারবে? সেই প্রশ্ন থেকেই যায়।

আমরা সেই বাংলাদেশকে চাই না যেখানে বেকারত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাবে। বেকার বেশি হলে সেই দেশ কখনই উন্নতির দিকে যায় না। আমি চাইব, একাডেমীক পড়াশুনার থেকে শিক্ষার্থীর বিভিন্ন দক্ষতা বাড়ানো ও তাদের ক্যারিয়ার নিয়ে কিছু কোর্স তারা করুক। শিক্ষার্থীরা উদ্যোক্তা হয়ে উঠুক। নতুন কিছু করার স্বপ্ন দেখুক। না হলে গ্রাজুয়েশন শেষ করে বেকার হয়ে বসে থাকলে বাড়তে থাকবে বিষণ্ণতা। করোনায় শিক্ষার ক্ষতি সত্যি অপূরণীয়। করোনার জন্য অধিকাংশ অসচ্ছল পরিবারের শিক্ষার্থীরা আরও বেশি হতাশায় ভুগছে। সংসারে আয় না থাকায় তারা মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। অনলাইন ক্লাস নিয়মিত করতে পারছে না, প্রয়োজনীয় ডিভাইস নেই, ইন্টারনেট সুবিধা নেই। টিউশন করিয়ে পড়াশুনা করা শিক্ষার্থীরা করোনায় গ্রামে বন্দি। মাত্র গ্রাজুয়েশন শেষ করা শিক্ষার্থীরাও এই ক্ষতিগ্রস্থের শিকার বেশি।

এই মহামারীর মধ্যেও আমরা স্বপ্ন দেখি, আশা রাখি একদিন এই দুর্যোগ থেমে যাবে। শিক্ষার্থীরা তাদের প্রতিকূলতাকে পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাবে।
লেখকঃ
শিক্ষার্থী, ফার্মেসী বিভাগ, গণ বিশ্ববিদ্যালয়, সাভার, ঢাকা-১৩৪৪।
সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক,
গণ বিশ্ববিদ্যালয় সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (জিবিএসডিসি)

সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আর নিউজ দেখুন
© All rights reserved 2015- 2020 thepeoplesnews24

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন কৃত।

Design & Developed By: Limon Kabir
freelancerzone