সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

কাজ করে খাই, ভাতের অভাব নাই

রির্পোটারের নাম
  • প্রকাশের সময়: রবিবার, ৩১ মে, ২০২০
  • ১১৬ জন দেখেছেন

হাজী আব্দুস ছালাম শেখ-

আলহামদুলিল্লা হিল্লাজি, আলা কুল্লে হাল। অর্থঃ সর্ব অবস্থায় প্রশংসা আল্লাহ তায়ালার জন্য। (ইবনে নাজাহ)। আমরা সেই আল্লাহর যিনি আমাদের মহামারীর এই সময়েও আমাদের সুস্থ রেখেছেন, বাঁচিয়ে রেখেছেন। পুরো দুনিয়া যখন থমকে গেছে করোনা নামক এক ক্ষুদ্র ভাইরাসের কাছে, আমাদের প্রিয় বাংলাদেশও তার বাইরে না। বিজ্ঞানীদের মতে এই ভাইরাস,খুব তাড়াতাড়ি বিদায় হচ্ছে না। এ নিশ্চয়ই ভীতির খবর। এখন কি করবো আমরা? আমরা কি হতাশায় ভেঙে পড়বো? অবশ্যই না..। আল্লাহ কুরআনে বলেছেন ” আর তোমরা নিরাশ হয়ো না এবং দুঃখ কোরো না, যদি তোমরা মুমিন হও তোমরাই জয়ী হবে”। সূরা আল ইমরান/ আয়াতঃ১৩৯। আচ্ছা সে তো গেলো হতাশার কথা। হতাশ হলাম না। লকডাউন শিথিল করা হলো, এবং যথাযথ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলবার নির্দেশ দিলো সরকার থেকে। আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে, এবং অবশ্যই মনে রাখতে হবে, কাজের কোনো ছোটো বড়ো নাই। এমন তাল মাতাল পরিস্থিতিতে আমাদের অনেকের এরকম হবে, হয়তো চাকুরী নেই কিংবা ব্যবসা বানিজ্যের মন্দা। এখন তো আবার আরেক চিন্তা খাবো কি? রিযিকের ব্যবস্থা কি? এ বিষয়ে মহান আল্লাহ কুরআনে বলেন- ‘পৃথিবীতে চলমান সকল প্রাণীর জীবিকার দায়িত্ব আল্লাহর। তিনি তাদের অবস্থানস্থল ও সংরক্ষণস্থল জানেন। সবকিছুই এক স্পষ্ট গ্রন্থে লিপিবদ্ধ আছে’ (সূরা হুদ /আয়াতঃ৬)। এখন আল্লাহ রিযিক দিবেন, তাই বলে তো আর আমরা সকলে,ঘরে বসে থাকলে তো আর রিযিক আসবে না। সবাইকে কাজে লাগতে হবে কর্ম্মোদ্দ্যমী হতে হবে। আল্লাহর দেয়া দুটি হাত কাজে লাগালে বিশ্বাস করেন রিযিকের অভাব হবে না। আমরা যে বিত্তরেই হই নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত, কিংবা উচ্চবিত্ত, কারো মুখাপেক্ষী যেনো না হই। আমরা তো মুখাপেক্ষী হবো আল্লাহর কাছে। ধরে নিন একজন ব্যক্তি ত্রাণ দিবে এখন সেই ত্রাণের জন্য, সারাদিন কাঠ ফাটা রোদে বসে না থেকে, আপনি যদি সেই সময়টায় কাজ করেন,ব্যাস আল্লাহ আপনাকে রুটি রুজি দিয়ে দিবে। উন্নত বিশ্বের দিকে যদি তাকাই আমরা। কি দেখতে পাই। তাদের উন্নয়ন উন্নতি। এই যে উন্নতি তা কি আকাশ ফুঁড়ে এসেছে, নাকি জমিন খুঁড়ে পেয়েছে। না, এর কোনোটাই না। তারা পরিশ্রম করেই আজকের এই অবস্থায় এসেছে। উদহারণ স্বরুপ আমি জাপানের কথাই বলতে চাই, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিরোশিমা আর নাগাসাকি তে তেজস্ক্রিয় বোমার ক্ষত, জনসংখ্যার চাপ, নিত্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ ভূমিকম্প সব কাটিয়ে জাপান আজ বিশ্ব অর্থনীতির এক শক্ত ভিতের দেশ। কিভাবে হয়েছে তারা? শুধুমাত্র পরিশ্রমের দ্বারা। তারা কেউ বেকার বসে নেই। বাচ্চা থেকে বৃদ্ধ সকলেই কাজ করে। আপনি আমার বৃদ্ধ বাবা, আপনি আমার বয়স্ক মা। কোথাও পরিশ্রমের কাজে যেতে পারছেন না। বাবা আপনি বাড়ির আঙিনায় দুটো ডাঁটা শাক লাগান, মা আপনি দুটো লাউ বীজ বুনুন৷ বিশ্বাস করেন খেয়ে পরে বাঁচবেন, আল্লাহ রহমত দিবেন,বরকত দিবেন। সুজলা সুফলা, শস্য শ্যামলা এই বাংলায়, আল্লাহ অনেক দিয়ে রেখেছেন। আমি আমার আঞ্চলিক ভাষায় বলতে চাই, “আসেন ভাই কাজ করে খাই/ ভাতের অভাব নাই”!! লেখা শেষ করতে চাই পবিত্র কুরআনের একটি আয়াত দিয়ে- “নিশ্চয়ই আল্লাহ্ কোন জাতির ভাগ্য পরিবর্তন করেন না যতক্ষন পর্যন্ত না তারা নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করতে সচেষ্ট হয়। (সূরা আর রাদ/আয়াতঃ ১১)। তাই আসুন হতাশ না হয়ে আল্লাহর উপর তাওয়াক্কুল করে পরিশ্রম করি। আল্লাহ সফলতা দেবেন। ইনশাল্লাহ।

লেখক- পরিচালকঃ টেক্সজেন গ্রুপ লিমিটেড।

সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আর নিউজ দেখুন
© All rights reserved 2015- 2020 thepeoplesnews24

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন কৃত।

Design & Developed By: Limon Kabir
freelancerzone