রবিবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, দুপুর ২:২৪
রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়ঃ অক্টোবর, ৭, ২০১৯, ৫:৫৩ অপরাহ্ণ
  • 47 বার দেখা হয়েছে

আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বেড়ে যাওয়ায় দেশের বাজারেও হঠাৎ করে বেড়ে যায় পেঁয়াজের দাম। হু হু করে বাড়তে থাকা পেঁয়াজের মূল্য চলে যায় ১০০ এর উপরে। এতে করে শুরু হওয়া যাওয়ায় পেঁয়াজের সংকট। পেঁয়াজের মূল্য স্বাভাবিক রাখতে দেশের বাজারে টিসিবি সহনীয় দামে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করে। চাহিদার বিপরীতে যোগান কম থাকায় প্রত্যেকের দ্বারা পেঁয়াজ কেনাও সম্ভব হয়ে উঠছিলো না।

সম্প্রতি চারদিনের সফরে ভারতে যাত্রা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আন্তর্জাতিক বাজারের প্রভাবে দেশীয় ও পার্শ্ববর্তী দেশের পেঁয়াজের অচলাবস্থা নিয়ে সেখানে বৈঠকে মিলিত হন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও শেখ হাসিনা। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাংলাদেশে ৬০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। ভারতের সরকারি ঊর্ধ্বতন সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশের বর্তমান চাহিদা মেটানোর জন্য পেঁয়াজ রপ্তানির এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপকালে প্রধানমন্ত্রী পেঁয়াজের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্তের আগে বাংলাদেশকে আগেই অবহিত করার জন্য অনুরোধ জানান।

ভারত-বাংলাদেশ বিজনেস ফোরামের (আইবিবিএফ) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, হঠাৎ করেই ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ ব্যাপারে আমাদের আগেই অবহিত করলে আমরা অন্য জায়গা থেকে পেঁয়াজ আনার ব্যবস্থা করতাম। গত ৩০ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করেই ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এরপর দেশের বাজারে লাগামহীনভাবে বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম। মানভেদে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেড়ে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায় পৌঁছে যায়। এতে বিপাকে পড়ে স্বল্প আয়ের মানুষ।

তবে সরকারের নানা উদ্যোগে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে। মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে। পেঁয়াজ আসছে মিশর ও তুরস্ক থেকেও। রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে এখন প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৮৫ থেকে ৯৫ টাকা ও আমদানিকৃত পেঁয়াজ ৭৫ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, খুব শিগগির পেঁয়াজের দাম আরো কমবে।

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরের বিপরীতে ভারতের ঘোজাডাঙ্গায় অপেক্ষমাণ প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ট্রাক পেঁয়াজ বাংলাদেশে প্রবেশ করতে শুরু করেছে। এই পেঁয়াজ আসার পর দাম আরো কমবে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন। ভোমরা সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক জানান, ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করার আগে ঘোজাডাঙ্গায় প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ট্রাক পেঁয়াজ দেশে প্রবেশের জন্য অপেক্ষমাণ ছিল।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ পড়ুন