মঙ্গলবার, ২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, বিকাল ৫:০১
সর্বশেষ :
ময়মনসিংহের ফুলপুরে ব্রিজ না থাকায় শিক্ষার্থীদের ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার ময়মনসিংহে জিনের বাদশা দলের প্রধান গ্রেফতার ফরিদনগর টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড বি.এম কলেজের নবীন বরণ ও বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের ৫ জন নিহত সলঙ্গা বিদ্রোহ দিবস উপলক্ষে র‌্যালী-আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সলঙ্গা বিদ্রোহ দিবস পালন শুরু রায়গঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় শিক্ষক আটক রায়গঞ্জে কর্মচারীদের গ্রেড পদবী পরিবর্তন ও উন্নীত করণের দাবিতে কর্ম বিরতিসহ অবস্থান কর্মসূচী রায়গঞ্জে কর্মচারীদের গ্রেড পদবী পরিবর্তন ও উন্নীত করণের দাবিতে কর্ম বিরতিসহ অবস্থান কর্মসূচী এখনো ‘করোনা ভাইরাস’র সতর্কতা জারি হয়নি মোংলা বন্দরে
সংবাদ শিরোনামঃ
ময়মনসিংহের ফুলপুরে ব্রিজ না থাকায় শিক্ষার্থীদের ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার ময়মনসিংহে জিনের বাদশা দলের প্রধান গ্রেফতার ফরিদনগর টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড বি.এম কলেজের নবীন বরণ ও বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের ৫ জন নিহত সলঙ্গা বিদ্রোহ দিবস উপলক্ষে র‌্যালী-আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সলঙ্গা বিদ্রোহ দিবস পালন শুরু রায়গঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় শিক্ষক আটক রায়গঞ্জে কর্মচারীদের গ্রেড পদবী পরিবর্তন ও উন্নীত করণের দাবিতে কর্ম বিরতিসহ অবস্থান কর্মসূচী রায়গঞ্জে কর্মচারীদের গ্রেড পদবী পরিবর্তন ও উন্নীত করণের দাবিতে কর্ম বিরতিসহ অবস্থান কর্মসূচী এখনো ‘করোনা ভাইরাস’র সতর্কতা জারি হয়নি মোংলা বন্দরে
রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়ঃ জানুয়ারি, ১২, ২০২০, ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ
  • 36 বার দেখা হয়েছে

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সীমান্তে মাদরাসা ছাত্র সাত বছর বয়সী শিশু তোফাজ্জলকে অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে তার দাদা চাচা ফুফুসহ আরও সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছেন থানা পুলিশ।

শনিবার (১১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় তাহিরপুর থানা পুলিশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন-উপজেলার সীমান্ত গ্রাম বাঁশতলার নিহত শিশু তোফাজ্জলের দাদা জয়নাল, চাচা একবাল হোসেন, ফুফু শেফালী বেগম, অপর ফুফু শিউলী বেগম, প্রতিবেশী হবি রহমান, তার স্ত্রী খইরুন নেছা ও তাদের ছেলে রাসেল।

এর আগে শনিবার সকালে নিহত তোফাজ্জলের পরিবারের সাথে মামলা মোকদ্দমা নিয়ে পূর্ব বিরোধের জেরে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে প্রথম দফায় গ্রামের কালা মিয়া ও তার ছেলে সেজাউল কবিরকে আটক করা হয়।

আটক কালা মিয়ার ছেলে আটককৃত অপর সন্দেহভাজন সেজাউল কবিরের সঙ্গে নিহত শিশু তোফাজ্জলের ফুফু শিউলি বেগমের বিয়ে হয়। নিহতের পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের পরে শিউলীকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয় সেজাউল কবির। এ নিয়ে উভয় পরিবারের মধ্যে পূর্ব বিরোধ ও মামলা মোকদ্দমা চলাকালীন অবস্থায় গত ৮ জানুয়ারি নিখোঁজ হয় শিশু তোফাজ্জল। এরপর তোফাজ্জলের পরিবার অভিযোগের আঙ্গুল তুলেন কালা মিয়া ও তার ছেলে সেজাউল কবিরের দিকে।

তারা অভিযোগে করেন, অপহরণের পর চিরকুট লিখে ৮০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করার পর মুক্তিপণ না দেওয়ায় তোফাজ্জলকে হত্যা করা হয়। আর এবার হত্যার অভিযোগ নিহত তোফাজ্জলের ফুফু শিউলীর শ্বশুর কালা মিয়া ও জামাই সেজাউলের প্রতি।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার ওসি মো.আতিকুর রহমান বলেন, দুই দফায় ৯ জনকে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মো.মিজানুর রহমান জানান, আটককৃতদের নিবিড় পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছে পুলিশ। তদন্ত ছাড়া ওই শিশু অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডে কে বা কারা জড়িত রয়েছেন সে ব্যাপারে আপাতত কিছুই বলা সম্ভব হচ্ছে না।

প্রসঙ্গত, নিখোঁজের চারদিন পর শনিবার ভোররাত সোয়া ৫টার দিকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তে বস্তাবন্দী অবস্থায় তোফাজ্জল হোসেন নামে ৭ বছর বয়সী এক শিশুর লাশ সিমেন্টের বস্তায় বন্দি অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ পড়ুন