শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
যমুনার ভাঙন পরিদর্শনে এমপি মমিন মন্ডল ঢাকা-সিঙ্গাপুর-ঢাকা রুটে আবারও চালু হচ্ছে ফ্লাইট সিরাজগঞ্জের বাজারকে ডিজিটাল বাজার করবে অল এক্সপ্রেস অন লাইন মার্কেট সিরাজগঞ্জ পৌরসভার জায়গা দখল করে অবৈধ গাড়ীর গ্যারেজ নির্মাণের অভিযোগ দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত দেশ গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করছে আ.লীগ-ডাঃ হাবিবে মিল্লাত এমপি সুদ মুক্ত ঋণের চেক বিতরণ করলেন ডেপুটি স্পিকার কক্সবাজার থেকে শীর্ষ কর্মকর্তাসহ পুলিশের ১৩৪৭ সদস্য বদলি পলাশবাড়ীতে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট আগুনের সূত্রপাতে বসতবাড়ী ভস্মিভূত একসাথে ২০ জনের সাথে প্রেম, বগুড়ায় কলেজ ছাত্র গ্রেফতার নওগাঁয় বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর হামলা, মাঠছাড়া করার হুমকির অভিযোগে জেলা বিএনপির সংবাদ সম্মেলন

চিতাবাঘের মাংস দিয়ে বনভোজন, পুলিশের মামলা

রির্পোটারের নাম
  • প্রকাশের সময়: রবিবার, ১২ জানুয়ারি, ২০২০
  • ৮৬ জন দেখেছেন

ভারতের আসামে বাঘের মাংস দিয়ে বনভোজন করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বাঘের মাংস খেয়ে আগেই আলোচনায় এসেছে আসামের অটল রঙঢালি এলাকার বাসিন্দারা। ‘বাঘখেকো’ তকমা পেয়েছেন তারা। আবারও পূর্ণবয়স্ক চিতাবাঘকে পিটিয়ে মেরে তার মাংস ওই এলাকার মানুষ। পশুপ্রেমীরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

গ্রামবাসীরা জানিয়েছে, পাঁচ জন মানুষের উপর হামলা চালিয়েছিল সেই চিতাবাঘটি। এর পর নদী পেরিয়ে আরেক গ্রামে ঢুকেও কিছু মানুষের উপর হামলা চালায়। নদী পেরিয়ে দ্বিতীয় গ্রামে ঢোকার পর চিতাবাঘটিকে ঘেরাও করে গ্রামবাসীরা। ইট, পাথর, লাঠি দিয়ে পিটিয়ে চিতাবাঘটিকে মেরে ফেলে তারা। এর পর শুরু হয় চিতাবাঘের মাংস রান্না করে খাওয়ার আয়োজন। কেউ কেউ আবার নৃশংস এই ঘটনার ভিডিও করে রাখেন।
এ ঘটনায় গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ। দোষীদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। পুলিশ জানিয়েছে, বছর তিনেক আগেও এই এলাকায় চিতাবাঘ মেরে মাংস খেয়েছিল গ্রামবাসীরা।

আসাম-নাগাল্যান্ড সীমানায় এর আগে হাতি মেরে মাংস খাওয়ার ঘটনা শোনা গেছে। গণ্ডার, বিড়ালের মতো পশু মেরে তাদের মাংস রান্না করে খেয়েছেন কিছু মানুষ।

সূত্র: জিনিউজ

সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আর নিউজ দেখুন
© All rights reserved 2015- 2020 thepeoplesnews24

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন কৃত।

Design & Developed By: Limon Kabir
freelancerzone