বৃহস্পতিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, রাত ১১:৩২
সর্বশেষ :
সংবাদ শিরোনামঃ
রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়ঃ জানুয়ারি, ১১, ২০২০, ৭:২৫ অপরাহ্ণ
  • 21 বার দেখা হয়েছে

চাপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের নদী তীরবর্তী দিয়াড় ও বরেন্দ্র অঞ্চলের মাঠ এখন ছেয়ে গেছে হলুদে-হলুদে। যেদিকে চোখ যায়, শুধু সরিষা আর সরিষা।

কৃষি বিভাগ বলছে, জেলায় এবার রেকর্ড পরিমাণ সরিষা আবাদ হয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে ফলনও বাম্পার হবে।

চাষীরা বলছেন, একে তো সরিষা চাষে খরচ ও পরিশ্রম দুটোই কম। অন্যদিকে এবার বন্যা দেরিতে হওয়ায় পানি নেমে
যাওয়ার পর অন্য ফসল চাষের আর সময় ছিল না। তাই চাষীরা সরিষা চাষের দিকেই ঝুঁকেছেন।

একবিঘা জমিতে সরিষা চাষ করতে খরচ হয় সর্বোচ্চ ১৫০০ টাকা। কিন্তু ফলন পাওয়া যায় ৬ থেকে ৭ মণ, যার বাজারমূল্য ১১ হাজার থেকে সাড়ে ১২ হাজার টাকা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, এ বছর ১৩ হাজার ৯৫৮ হেক্টর জরিতে সরিষা চাষের লক্ষমাত্রার বিপরীতে চাষাবাদ হয়েছে ১৫ হাজার ৫৩৫ হেক্টর। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে দেড় হাজার হেক্টর বেশি। সবচেয়ে বেশি আবাদ হয়েছে নাচোল উপজেলায়, ৫ হাজার হেক্টর জমিতে। সরিষা আবাদ বাড়লে তেলজাতিয় পণ্যের আমদানি নির্ভরতা কমবে বলেও মনে করেন এই কর্মকর্তা।

অন্যদিকে চাষীরা বলছেন, মাঝে মৃদু শৈত্যপ্রবাহের কারণে সামান্য কিছু ক্ষতি হলেও এখন সরিষা ক্ষেতে ছেয়ে গেছে ফুলে ফুলে। আর কিছুদিন পরেই ফুল থেকে সরিষা দানা হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে এবার বাম্পার ফলনের আশা করছেন তারা।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ পড়ুন