শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
যমুনার ভাঙন পরিদর্শনে এমপি মমিন মন্ডল ঢাকা-সিঙ্গাপুর-ঢাকা রুটে আবারও চালু হচ্ছে ফ্লাইট সিরাজগঞ্জের বাজারকে ডিজিটাল বাজার করবে অল এক্সপ্রেস অন লাইন মার্কেট সিরাজগঞ্জ পৌরসভার জায়গা দখল করে অবৈধ গাড়ীর গ্যারেজ নির্মাণের অভিযোগ দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত দেশ গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করছে আ.লীগ-ডাঃ হাবিবে মিল্লাত এমপি সুদ মুক্ত ঋণের চেক বিতরণ করলেন ডেপুটি স্পিকার কক্সবাজার থেকে শীর্ষ কর্মকর্তাসহ পুলিশের ১৩৪৭ সদস্য বদলি পলাশবাড়ীতে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট আগুনের সূত্রপাতে বসতবাড়ী ভস্মিভূত একসাথে ২০ জনের সাথে প্রেম, বগুড়ায় কলেজ ছাত্র গ্রেফতার নওগাঁয় বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর হামলা, মাঠছাড়া করার হুমকির অভিযোগে জেলা বিএনপির সংবাদ সম্মেলন

কন্যা সন্তান অভিশাপ নয়, যা বলে ইসলাম

রির্পোটারের নাম
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারি, ২০২০
  • ১১৮ জন দেখেছেন

অনলাইন ডেস্ক:
আল্লাহ তায়ালা কাউকে কন্যা সন্তান দান করেন, আবার কাউকে পুত্রসন্তান। আবার কাউকে উভয়টিই দান করেন। কাউকে আবার কোন সন্তানই দেন না। এটি পুরোটাই মহান স্রষ্টার ইচ্ছাধীন। কন্যা সন্তান এবং পুত্র সন্তান উভয়ই আল্লাহর দান। দুঃখজনকভাবে আমাদের সমাজে পরিলক্ষিত, যখন পুত্র সন্তান জন্মলাভ করে তখন আনন্দের সঙ্গে মিষ্টি বিতরণ করে, পক্ষান্তরে কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণে কোন খুশি প্রকাশ করেনা। কারো সঙ্গে কন্যা সন্তান হওয়ার আলোচনাটুকু করতেও লজ্জাবোধ করেন অনেকেই। অনেক সময় কন্যা সন্তান হওয়ায় স্ত্রীর উপর স্বামী এবং তার পরিবারের সদস্যরা অসন্তোষ প্রকাশ করেন। বিরূপ আচরণ করেন।

এদিকে মহান আল্লাহ তা’য়ালা পবিত্র কোরআনে বলেন, ‘আসমান ও জমিনের রাজত্ব একমাত্র আল্লাহরই। তিনি যা চান সৃষ্টি করেন। যাকে ইচ্ছা কন্যা সন্তান দান করেন এবং যাকে ইচ্ছা পুত্রসন্তান দান করেন।’ (সুরা শুরা, আয়াত-৪৯) কোরআনের শিক্ষার এ বোধটুকু একজন মুসলমানের বিবেকে থাকা উচিত। কোন মুসলমানের জন্য এধরনের কাজ সম্পূর্ণ নাজায়েজ এবং গুনাহের কাজ। এমনকি আল্লাহ তাআলার সৃষ্টি জ্ঞানের উপর আপত্তি করার নামান্তর। এটা জাহিলি যুগের কাফিরদের কর্মপন্থা।

আল্লাহ তায়া’লা বলেন, ‘তাদের কাউকে যখন কন্যা সন্তানের ‘সুসংবাদ’ দেয়া হয় তার মুখ কালো হয়ে যায় এবং অসহনীয় মনস্তাপে ক্লিষ্ট হয়।’ (সূরা নাহল, আয়াত-৫৮,৫৯)। কন্যা সন্তান মহান আল্লাহ তা’য়ালার পক্ষ থেকে মাতা-পিতার জন্য একটি বিশেষ নেয়ামত। কন্যা সন্তানকে অশুভ মনে করা কাফেরদের বদ স্বভাব। কন্যা সন্তানকে অপছন্দ করা খাঁটি মুমিনের পরিচয় নয়। কন্যা সন্তান অশুভ বা অকল্যাণকর নয়, বরং কন্যা সন্তান জন্ম নেওয়া সৌভাগ্যের নিদর্শন। হজরত আয়েশা (রা.) বর্ণিত, ‘রাসূল (সা.) বলেন, ওই স্ত্রী স্বামীর জন্য অধিক বরকতময় যার দেনমোহরের পরিমাণ কম হয় এবং যার প্রথম সন্তান হয় মেয়ে।’ তাই কোন মুসলমানের এই প্রথার সঙ্গে কোনরূপ সামঞ্জস্য থাকা উচিত নয়। কন্যা সন্তানে কোনরূপ অসন্তোষ প্রকাশ পরিহার করা উচিত। রাসূল (সা.) যেমন কন্যা সন্তানকে আল্লাহর রহমত বলেছেন এবং কন্যা সন্তানের প্রতি যে ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন এটা আমাদের আদর্শ। তার অনুসরণ আমাদের কর্তব্য। তাছাড়া কন্যা সন্তান জন্মানোয় নিজেকে ছোট, অপমানিত মনে করা কাফেরদের কর্মপন্থা। তাই মুসলমানদের উচিত,অধিক আনন্দ প্রকাশের মাধ্যমে কাফেরদের এ নিকৃষ্ট রীতির বিলুপ্তি ঘটানো।

সামাজিক যোগাযোগে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আর নিউজ দেখুন
© All rights reserved 2015- 2020 thepeoplesnews24

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রনালয়ের নিয়ম মেনে নিবন্ধনের আবেদন কৃত।

Design & Developed By: Limon Kabir
freelancerzone