1. admin@thepeoplesnews24.com : admin :
  2. shohel.jugantor@gmail.com : alamin hosen : alamin hosen
স্টেশনে যাত্রীকে আটকে রেখে হয়রানি ও লুটপাটের ‘সত্যতা’ মিলল পুলিশের বিরুদ্ধে - Thepeoples News 24
মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৯:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
নাটোরের সিংড়ায় বিদ্যুৎ-তেল ছাড়াই সেচপাম্প তৈরী করা দেখতে উৎসুক জনতার ভীড় কাজিপুরে উপজেলা পরিষদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত কোরবানির বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় জনসচেতনতা তৈরিতে ডিসি ইউএনওদের নির্দেশ দক্ষিণাঞ্চলে বইছে নব জাগরণের ঢেউ পদ্মা সেতুর জন্য সরকারের দেওয়া ঋণ শোধ হবে ৩৫ বছরে পদ্মা সেতুতে নিরাপত্তা জোরদার, জলেস্থলে বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারি উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা শিল্পায়নকে ত্বরান্বিত করে: প্রধানমন্ত্রী নাটোরে বসুন্ধরা গ্রুপের কিং র্ব্যান্ড সিমেন্টের হালখাতা অনুষ্ঠিত নতুন সব ব্র্যান্ডের সাথে এবারে শপিংয়ের মজা আরো জমবে দারাজে সেরা ব্র্যান্ড, দূর্দান্ত প্রোডাক্ট আর আকর্ষণীয় ডিস্কাউন্ট নিয়ে উপভোগ করুন কেনাকাটার সেরা অভিজ্ঞতা! ইসিকে বাংলাদেশ ন্যাপ : ইভিএম’র উপর জনগণের কোন আস্থা নাই

স্টেশনে যাত্রীকে আটকে রেখে হয়রানি ও লুটপাটের ‘সত্যতা’ মিলল পুলিশের বিরুদ্ধে

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ৮ জুন, ২০২২
  • ১৪০ বার দেখা হয়েছে
স্টেশনে যাত্রীকে আটকে রেখে হয়রানি, লুটের ‘সত্যতা’ মিলেছে

যশোর রেলওয়ে স্টেশনে রেলওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে ভারত ফেরত যাত্রীকে আটকে রেখে হয়রানি, মালামাল লুট ও চাঁদাবাজির অভিযোগের ‘প্রাথমিক সত্যতা’ মিলেছে।

বুধবার (৮ জুন) অভিযোগ তদন্তে এসে রেলওয়ে পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মজনুর রহমান ঘটনার সত্যতা পেয়েছেন। গত ৫ জুন রাতে যশোর রেলওয়ে স্টেশনে ওই ঘটনার শিকার হন সিরাজগঞ্জের সালঙ্গা থানার ধুবিল মেহমানশাহী গ্রামের বাসিন্দা ও ঢাকা তেজগাঁও কলেজের মাস্টার্সের ছাত্র টি. এম. রাশিদুল হাসান। ঘটনার পরদিন ৬ জুন তিনি জিআরপি পুলিশ হেডকোয়ার্টারে অভিযোগ করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার (৮ জুন) দুপুরে খুলনা রেলওয়ে জেলার কুষ্টিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মজনুর রহমান অভিযোগ তদন্তে যশোর রেলওয়ে স্টেশনে আসেন। ঘটনার শিকার রাশিদুল হাসানও সিরাজগঞ্জ থেকে যশোরে আসেন। তদন্ত কর্মকর্তা সহকারী পুলিশ সুপার মজনুর রহমান ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেন। এ সময় তিনি ভুক্তভোগীসহ স্টেশন মাস্টার আয়নাল হাসান, রেলওয়ে কর্মকর্তা, কর্মচারী, জিআরপি ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই শহিদুল ইসলাম, ফাঁড়ির কনস্টেবলগণ এবং স্টেশনের বিভিন্ন দোকানের দোকানিদের সঙ্গে কথা বলেন। একইসঙ্গে অভিযুক্ত কনস্টেবলদেরও জবানবন্দি গ্রহণ করেন।
খুলনা রেলওয়ে জেলার কুষ্টিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মজনুর রহমান অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তিনি পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখছেন। বিস্তারিত প্রতিবেদন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রদান করবেন। এরপর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

টি. এম. রাশিদুল হাসান অভিযোগে জানান, গত ৫ জুন তিনি ভারত থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে দেশে প্রবেশ করেন। এরপর বাস যোগে রাত ৮টার দিকে যশোর স্টেশনে আসেন সুন্দরবন এক্সপ্রেসে করে বাড়ি (সিরাজগঞ্জ) যাওয়ার জন্য। স্টেশনে অবস্থানকালে রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) কনস্টেবল আবু বক্কার ও আতিকুর রহমানসহ সাদাপোশাকধারী আরও তিনজন তার ব্যাগ তল্লাশির নামে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে ভারত থেকে আনা পোশাক, প্রসাধনীসহ প্রায় ১৫ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে নেয়। পরে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিকাশের মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা নিয়ে সাদা কাগজে স্বাক্ষর রেখে ছেড়ে দেয়। রাত দেড়টার দিকে তাকে ছেড়ে দেয়ার পর বাধ্য হয়ে প্রাইভেটকার ভাড়া করে রাশিদুল বাড়িতে ফেরেন।

রাশিদুল জানান, রেলওয়ে পুলিশের এই মালামাল লুট, চাঁদাবাজির বিষয়টি তিনি ৯৯৯ এ ফোন করে পরে রেলওয়ে পুলিশের হেডকোয়ার্টারে এসপি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) বরাবর অভিযোগ করেছেন। রাশিদুল জানিয়েছেন, ওই রাতে তিনি যে বিকাশ নাম্বারে টাকা দিয়েছেন তার স্ক্রিনশট, গোপনে পুলিশ কনস্টেবলদের তোলা ছবি ও ভিডিও অভিযোগের সঙ্গে সংযুক্ত করেছেন। পাশাপাশি ঘটনার সময় স্টেশনের সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করলেও তার অভিযোগের সত্যতা মিলবে বলে দাবি করেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল আবু বক্কার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই রাতে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। তারা কোনো যাত্রীকে তল্লাশি করেননি।

এই পোস্ট টি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
©২০১৫-২০২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized BY Limon Kabir