1. admin@thepeoplesnews24.com : admin :
  2. shohel.jugantor@gmail.com : alamin hosen : alamin hosen
মৌ খামারীদের ভাগ্যবদল - Thepeoples News 24
রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
বেলকুচি উপজেলার তৃনমুল নেতাকর্মীদের আশ্বাস ও নারী নেতৃত্বের অনন্যা বেগম আশানুর বিশ্বাস : দীর্ঘ দশ বছর পর বেলকুচি উপজেলা আ:লীগের সম্মেলন : তৃনমুল নেতারা চায় কর্মীবান্ধব নেতা গুরুদাসপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পর ৩৬ নারী পলা সলাই মশিন গ্যালাক্সি এ৭২ ও গ্যালাক্সি এ০৩ কোর স্মার্টফোনে আকর্ষণীয় ক্যাশব্যাক ও ছাড় দি”েছ স্যামসাং বীরগঞ্জে ইব্রাহীম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতনে বার্ষিক মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব অযৌক্তিক ও অগ্রহনযোগ্য : বাংলাদেশ ন্যাপ সরকার পতনের লড়াইয়ে শফিউল আলম প্রধান অনুপ্রেরনার উৎস :লুৎফর রহমান সলঙ্গায় বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু পাকেরহাটে পপুলার ডেন্টাল কেয়ার এর উদ্বোধন বড়াইগ্রাম হাঁসের খামারে বিদ্যুৎপৃষ্টে নারীর মৃত্যু

মৌ খামারীদের ভাগ্যবদল

নাটোর প্রতিনিধি:
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৯১ বার দেখা হয়েছে

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মাঠে মাঠে সরিষার হলুদ ফুলে ছেয়ে গেছে। মাঠের পর মাঠ জুড়ে বিরাজ করছে থোকা থোকা হলুদ ফুলের দৃষ্টিনন্দন মনো মুগ্ধ কর দৃশ্য। এ সুযোগে মৌ-খামারীরা খেতের পাশে সারিবদ্ধ ভাবে মৌ বক্স বসিয়েছেন। সেখান থেকে দলে দলে মৌ-মাছির ঝাঁক বসছে সরিষার হলুদ ফুলে। একদিকে মৌ মাছির মাধ্যমে পরাগায়ন ঘটছে সরিষা উৎপাদন যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে অন্যদিকে মৌ-খামারীরা মধু সংগ্রহ করে বদলে যাচ্ছে তাদের ভাগ্যের চাকা।


গুরুদাসপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অফিস সুত্রে জানা গেছে,এ বছর উপজেলায় ৭৮০ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদ হয়েছে। শষ্য বহুমুখী করণে কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করা হচ্ছে। কৃষি অফিসের মাধ্যমে কৃষকদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে।
আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে লক্ষ্যমাত্রায় চেয়ে অধিক সরিষা উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন।

সরোজমিন গুরুদাসপুর উপজেলার বিলশা, রুহাই ও বামনবাড়িয়া গ্রামে গিয়ে দেখাগেছে, বিস্তৃত মাঠে সরিষা ফুলে ফুলে মৌমাছির গুঞ্জন। খেতের পাশেই মৌ-খামারীরা বাক্স পেতে বসেছেন। মৌ মাছিগুলো সরিষাফুল থেকে মধু সংগ্রহ করে বাক্সের ভেতর ঢুকছে আর বের হচ্ছে বিলশা ও রুহাই গ্রামে সরিষার ক্ষেত থেকে মধু সংগ্রহ করতে এসেছেন নাজিরপুর ইউনিয়নের জুমাইনগর গ্রামের মৌচাষি সানোয়ার হোসেন জানান, তার ১৪০টি মৌবাক্স রয়েছে। সেখান থেকে সপ্তাহে ৮ মন মধু সংগৃহীত হয়। তিনি ছাড়াও আরো ২ জন শ্রমিক নিয়োজিত আছে। মধু থেকে তাঁর সাপ্তাহিক আয় ৪৮ হাজার টাকা হলেও খরচ ১৬ হাজার টাকা। তার সাপ্তাহিক আয় প্রায় ৩২ হাজার টাকা।

একই ইউনিয়নের মোল্লা বাজার গ্রামের মৌচাষি বেলাল হোসেন জানান,তাদের উৎপাদিত মধুগুলো এপি,ডাবর,কম্বোসহ দেশীয় বিভিন্ন কোম্পানী ৬-৭ হাজার টাকা মন হিসাবে পাইকারী কিনে নেন। ডিসেম্বর মাসজুড়ে সরিষা ফুল থেকে মধু সংগৃহীত হয়ে থাকে। তার মতো এ উপজেলার অন্তত ৪০ জন মৌচাষি এ পেষার সাথে যুক্ত।

উপজেলার খুবজীপুর ইউনিয়নের বিলশা গ্রামের কৃষক আফজাল হোসেন জানান,স্বল্প সময়ে সরিষার ফসল ঘরে তুলে একই জমিতে বোরো ধান চাষ করা যায়। একারেন সরিষা চাষ করে থাকি। এ বছর তিনি ৬ বিঘা জমিতে সরিষার আবাদ করেছেন। সরিষার গাছ যে সুন্দর দেখা যাচ্ছে তাতে সরিষার বাম্পার ফলন হবে। রুহাই গ্রামের কৃষক আতিকুর রহমান বলেন, তিনি ১০ বিঘা জমিতে শরিষা আবাদ করেছেন।এ বছর চলনবিল থেকে দ্রুত বর্ষার পানি নেমে যাওয়ার কারনে তার মতো এলাকার অধিকাংশ কৃষক সরিষার আবাদ করেছেন। অল্প সময়ে এ ফসল ঘরে তুলে বোরো আবাদ করা যায় বলে আমরা সরিষা চাষ করছি।

গুরুদাসপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হারুনর রশীদ জানান, গুরুদাসপুর উপজেলায় ৭৮০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্র ধরা হয়েছে। ভোজ্য তেল ও শরিষার বাজারদর বেশি থাকায় শরিষা চাষে কৃষকের আগ্রহ বেশি। একরনে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি চাষ ও উৎপাদন দুটোই বাড়বে। আর সরিষা ফুল কেন্দ্রিক মধু সংগ্রহে কৃষক ও মৌ-খামারীরা উভয়েই লাভবান হচ্ছে।

এই পোস্ট টি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
©২০১৫-২০২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized BY Limon Kabir