জাহালমের পারিবারটি এখন নি:স্ব , ক্ষতিপূরনের দাবি

০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯   |   thepeoplesnews24

ফাইল ছবি


কায়কোবাদ,নাগরপুর(টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:
বিনা অপরাধে কাটানো হলো প্রায় তিন বছর কারাবাস। তিন বছর পর জাহালমকে কাছে পেয়ে পরিবারের সদস্যরা আনন্দিত হলোও কষ্টের শেষ নেই পরিবারের। বিগত তিন বছর বাড়ী বাড়ী কাজ করে সর্বস্ব বিক্রি করে ছেলেকে কারাগাড় থেকে মুক্ত করার জন্য কতই না মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছে তার পরিবার। অন্যের কাছ থেকে সুদে টাকা এনে ছেলের জন্য খরচ করলেও এ টাকা কি শোধ করবে। এখন তার চলার মত কিছু নেই। জাহালমের পরিবারটি  এখন নিঃস্ব।
জাহালমের মা মনোয়ারা বেগম বলেন, আমার তিন মেয়ে তিন ছেলে  জাহালম আমার মেঝ ছেলে। সে লেখাপড়া জানেনা সে কিভাবে এত টাকা আতœসাৎ করবে, আমার ছেলে বিনা অপরাধে তিন বছর জেল খারছে। মনোয়ারা বেগন কান্নাকষ্ঠে আরো বলেন, আমার ছেলের এতো বড় ক্ষতি কেন করলো ওরা। আমি তাদের শাস্তি চায় ,অনেক দেরি করে হলোও আমার ছেলে আমার কাছে ফিরে এসেছে আমি এতে অনেক আনন্দিত। কিন্তু বিনা অপরাধে যে শাস্তি আমার ছেলে ভোগ করেছে এর বিচার চাই। আজ আমরা নিঃস্ব আমাদের থাকার ঘর ছাড়া আরতো কিছুই নেই। তিনি আরো  বলেন, প্রতিদিন পাওনাদাররা বাড়ী আসে  তাদের টাকা ফিরত নেয়ার জন্য। আমরা তো সব কিছু হারিয়েছি এখন ক্ষতিপূরন কে দিবে। সরকারের কাছে আমরা সহায়তার জোর দাবি জানায়। দীর্ঘ ৩ বছর কারাভোগের পর অবশেষে উচ্চ আদালতের নির্দেশে মুক্তি পেয়েছে জাহালম মিয়া (৩০)। রোববার রাতে কাশিমপুর কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পায়। খোজ নিয়ে জানা যায়, আবু ছালেকের বিরুদ্ধে সোনালি ব্যাংকে সাড়ে ১৮ কোটি টাকা জালিয়াতির ৩৩টি মামলা হয়। কিন্তু আবু সালেকের বদলে জেল খাটেন জাহালম। জাহালম নিরাপরাধ প্রমান হয়। তদন্ত করে একই মত দেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। দুদকের দায়ের করা অর্থ জালিয়াতি মামলায় ভূলবশত তাকে গ্রেফতার করে। জাহালম টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার ধুবড়িয়া গ্রামের ইউসুফ মিয়ার ছেলে। সে তিন ভাই তিন বোনের মধ্যে দ্বিতীয়। স্ত্রী কল্পনা ও সাত বছর বয়সী চাদনী নামের এক কন্যা নিয়ে তাদের ছিল ছোট্র সংসার। জীবীকার টানে বাংলাদেশ জুট মিলে কাজ নেয় জাহালম। ছালেক নামক ব্যাক্তির সাড়ে ১৮ কোটি টাকা জালিয়াতির ৩৩টি মামলায় দুদক কর্মকর্তা সালেকের পরিবর্তে জাহালমকে আটক করে। মুক্তির পর জাহালম তার নিজ বাড়ি টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার ধুবড়িয়ায় ফিরেছে। স্বজনরা তাকে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পরেন। স্বজনদের জড়িয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। এদিকে জাহালমকে দেখেতে আশপাশের শত শত জনতা এ সময় তার বাড়িতে ভীর করে। মুক্তির পর মুক্ত বাতাসে প্রশান্তির নি:শ্বাস নিয়ে গণমাধ্যমের সামনে আসে জাহালম। সে তার অনুভ’তি জানিয়ে বলেন, স্বজনদের পেয়ে খুব ভাল লাগছে শান্তি লাগছে। পাশাপাশি মিথ্যা মামলায় দীর্ঘ সময় কারাগারে থাকার যন্ত্রনাও ভূলতে পারছিনা। আমার একমাত্র শিশু কন্যার মুখে বাবা ডাক থেকে বঞ্চিত হয়েছি। আমার পরিবার আমাকে মুক্ত করতে গিয়ে নিঃস্ব হয়েছে। আমার মা অন্যের বাড়ি কাজ করে আমার মুক্তির জন্য দ্বারে দ্বারে ধরনা দিয়েছে। আমি এর ক্ষতিপূরন চাই। একইসাথে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করি। জাহালমের মা মনোয়ারা বেগম ছেলে কে জড়িয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি বলেন, আমার ছেলেকে যারা বিনাদোষে জেলে দিছিলো তাগোরে বিচার চাই। ছেলের মুক্তির জন্য আমি সবকিছু হারিয়েছি এর ক্ষতিপুরন ক্যারা দিবো? আমি ক্ষতিপুরন চাই। আর কোন মায়ের সন্তান এভাবে যেন বিনা দোষে জেলে না যায় এ জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করেন।

 






নামাজের সময়সূচি

বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩