উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইউরিয়া সার কারখানা হচ্ছে পলাশে

২৬ অক্টোবর, ২০১৮   |   thepeoplesnews24

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক:

কৃষকের সারের চাহিদা পূরণ এবং সুলভমূল্যে  সার সরবরাহ নিশ্চিত করতে সরকার নরসিংদীর পলাশে আধুনিক ও উন্নত প্রযুক্তির উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন নতুন ইউরিয়া সার কারখানা নির্মাণ করতে যাচ্ছে। দৈনিক এর উৎপাদন ক্ষমতা হবে ২৮শ মে. টন। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) এ লক্ষে ১০ হাজার ৪৬০ কোটি ৯১ লাখ টাকা ব্যয়ে ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে।

এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৩২ হাজার ৫২৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ১৫ হাজার ৪৯৪ কোটি ৩৭ লাখ টাকা,বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ১১ হাজার ৬৫৬ কোটি ২৭ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে পাওয়া যাবে ৫ হাজার ৩৭৪ কোটি ২৬ লাখ টাকা।

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল বলেন, বর্তমানে দেশে ইউরিয়া সারের বার্ষিক চাহিদা ২৬-৩০ লাখ মে.টন এর বিপরীতে বিসিআইসির আওতাধীন ৬টি ইউরিয়া সার কারখানায় বার্ষিক মোট উৎপাদন হয় ৯-১০ লাখ মে. টন। ঘাটতি প্রায় ১৭-২০ লাখ মে. টন। বিদেশ থেকে আমদানির মাধ্যমে এই ঘাটতি পূরণ করা হয়। তিনি আরও বলেন, আমদানি নির্ভরতা কমাতে নরসিংদীর পলাশে একটি আধুনিক ও উন্নত প্রযুক্তির সার কারখানা নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এখানে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার করে দৈনিক ২৮০০ মে. টন ইউরিয়া সার উৎপাদন করা সম্ভব। ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ১০ হাজার ৪৬০ কোটি ৯১ লাখ টাকা।

পাকিস্তান আমলে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পূর্ব পাকিস্তানের বাণিজ্য, শ্রম ও শিল্পমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে, ১৯৫৭ সালে সিলেটের ফেঞ্জুগঞ্জে সার কারখানা স্থাপন হয়। বর্তমানে তাঁর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সে কারখানার স্থলে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির শাহ্জালাল সার কারখানা স্থাপন করেছেন।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) অক্টোবর ২০১৮ হতে জুন ২০২২ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।






নামাজের সময়সূচি

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
ফজর ৪:২৬
জোহর ১১:৫৬
আসর ৪:৪১
মাগরিব ৬:০৯
ইশা ৭:২০
সূর্যাস্ত : ৬:০৯সূর্যোদয় : ৫:৪৩