যেকোনো মুহূর্তে ভেঙে যাবে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া

১২ অক্টোবর, ২০১৮   |   thepeoplesnews24

সংগৃহীত ছবি

নিউজ ডেস্ক :

 জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের বাসায় ১১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এই বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়নি। মূলত ঐক্য প্রক্রিয়ার অন্যতম শরিক যুক্তফ্রন্টের আহ্বায়ক ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ডাঃ বদরুদ্দোজা চৌধুরী আপত্তির মুখে এবং পরবর্তী কিছু ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে যেকোন মুহূর্তে জোট ভেঙে যেতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

 

এর আগে বি. চৌধুরী বলেছিলেন, খুনিদের দলের সঙ্গে তিনি বৈঠক করবেন না।   ঐক্য প্রক্রিয়ায় বিএনপির থাকার প্রসঙ্গেই তিনি একথা বলেন। কারণ ১০ অক্টোবর ঘোষিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন এবং আরও ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

 

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় বিএনপির যুক্ত হওয়ার বিষয়টি নিয়ে চুড়ান্ত ফয়সালা না হওয়া পর্যন্ত জোটের কোনো বৈঠকে বি. চৌধুরী অংশগ্রহণ করবেন না বলে জানিয়ে দেন।   এই পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্টের অন্যতম উদ্যোক্তা এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) নেতা আ.স.ম আব্দুর রবের বাসায় ১১ই অক্টোবর বৃহস্পতিবার বৈঠক ডাকা হয়।

 

কিন্তু ওই বৈঠকের আগেই বি. চৌধুরীর ছেলে ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি. চৌধুরী বাংলা নিউজ পোস্টের প্রতিবেদককে বলেন, অন্য দলের দালালি করার জন্য কেউ যুক্তফ্রন্ট করলে সে ভুল করবে।

 

মাহী বি. চৌধুরীর এমন আচরণ সম্পর্কে বলতে গিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেএসডি’র প্রচার সম্পাদক বলেন,  মাহী বি. চৌধুরীর এমন মন্তব্যে ক্ষেপে যান আ.স.ম আব্দুর রব।  যার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাতে আ.স.ম আব্দুর রবের স্ত্রী তানিয়া রব ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্টের নেতাদের ফোন করে জানিয়ে দেন তাদের বাসায় বৈঠক বাতিল করা হয়েছে।  ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্টের পরবর্তী বৈঠক কবে কোথায় হবে সে ব্যাপারে কিছুই জানানো হয়নি।

 

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে এক প্রতিবেদনে বিএনপির ঐক্য প্রক্রিয়ায় থাকা নিয়ে বি. চৌধুরীর বর্তমান অবস্থানের কথা তুলে ধরা হয়।  এ প্রসঙ্গে ‘‘কামাল হোসেনকে বি. চৌধুরী বলেন, ‘খুনিদের সঙ্গে কি করে বসবেন?’’ প্রতিবেদনে বিএনপি নিয়ে ড. কামাল হোসেন ও বি. চৌধুরীর কথোপকথনের কথা তুলে ধরা হয়।  যেখানে ঐক্যে বিএনপির থাকা নিয়ে নিজের অসন্তোষের কথা তুলে ধরেন বি. চৌধুরী।