সেনাপ্রধানকে নিয়ে অসত্য বক্তব্য: ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আইনি

১২ অক্টোবর, ২০১৮   |   thepeoplesnews24

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক:

একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টক-শোতে বর্তমান সেনাপ্রধানকে নিয়ে অসত্য বক্তব্য দেয়ায় বিএনপিপন্থি বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় মানহানির মামলা হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে।   ১০  অক্টোবর রাতে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেলের টক-শোতে একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার নিয়ে আলোচনার এক পর্যায়ে সেনাপ্রধান সম্পর্কে মন্তব্য করেন। পরের দিন ওই টেলিভিশনে একই অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে পাঠানো একটি প্রতিবাদলিপি পড়ে শোনানো হয়। এতে বলা হয়, ‘ডা. জাফরুল্লাহর বক্তব্য ছিল দায়িত্বজ্ঞানহীন ও অসত্য। কারণ বর্তমান সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ পেশাগত জীবনে কখনোই চট্টগ্রামের জিওসি বা কমান্ড্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেননি। এ ধরনের মন্তব্য শুধু সেনাপ্রধান নয়, সেনাবাহিনীরও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ডিবিসি নিউজকে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘তিনি কিছু ভুল তথ্য দিয়েছেন। এ ব্যাপারে তিনি একটি সংশোধনী দেবেন।’ বিএনপিপন্থি বুদ্ধিজীবী ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী দাবি করেন, জেনারেল আজিজের বিরুদ্ধে কোর্ট অফ ইনকয়্যারি হয়েছিলো। এটা হয়েছিল যখন তিনি চট্রগ্রামে আর্টিলারিতে ছিলেন। সে সময় চট্রগ্রাম অস্ত্রাগারের কিছু জিনিসপত্র হারিয়ে গিয়েছিলো। তবে তার বক্তব্যের সত্যতা বা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে তার কাছে কোনো তথ্যপ্রমাণ আছে কি না, তা জানতে চাইলে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, ‘বিষয়টি যাচাইয়ের দায়িত্ব তার নয়।’ তিনি বলেন, ‘আমি তো কথা বলেছি; কথা বলাতো আমার অধিকার। বাংলাদেশ শান্তির দেশ হবে এটাই আমার কামনা। তবে যেহেতু তার বক্তব্যে ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি হয়েছে সেহেতু আমি একটি সংশোধনী দেব।’ এ বিষয়ে আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক, নাইমুল ইসলাম খান বলেন, ‘জাফরুল্লাহ নিজেই এ তথ্যটির বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে জানাতে পারেন। আর যদি তথ্যটি সঠিক না হয় তাহলে তার ওই বক্তব্যটি তিনি প্রত্যাহার করে নিতে পারেন অথবা দু:খ প্রকাশ করতে পারেন। কারণ মতামত যার যার কিন্তু তথ্য দেয়ার বিষয়টা কিন্তু তা নয় এ ব্যাপারে কারও স্বাধীনতা নেই। তথ্যটা যতটুকু ঠিক ততটু্কুই যেন হয়।‘ এদিকে এই ঘটনায় বিভিন্ন মহলে প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তাই ক্ষুব্ধরা এ ঘটনায় মানহানির মামলা দায়েরেরও প্রস্তুতি নিচ্ছেন।