উল্লাপাড়ায় টাকার বিনিময়ে প্রতিবন্ধি শিশু ধর্ষনের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার পায়তারা

১০ অক্টোবর, ২০১৮   |   thepeoplesnews24

ফাইল ছবি

 

জয়নাল আবেদীন জয়ঃ 

জোড়পূর্বক প্রতিবন্ধি শিশু ধর্ষনের ঘটনা মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষক প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে নির্যাতিত শিশুটির বাবা তার বিরুদ্ধে মামলাও করতে পারছে না। শিশু ধর্ষনের এমন ঘটনা ঘটেছে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার দহপাড়া গ্রামে।

জানা যায়,গত সপ্তাহে দহপাড়া গ্রামের রেজাউল করিমের দশ বছর বয়সি প্রতিবন্ধি মেয়ে ধর্ষনের শিকার হয়। প্রতিবেশি কছিম সরকারের ছেলে আশরাফ আলী (৪৭) ফুসলিয়ে ওই প্রতিবন্ধিকে জোড়পূর্বক ধর্ষন করে। পরে ঘটনাটি শিশুটির পরিবার ও গ্রামবাসীদের মাঝে জানা জানি হয়। এ ঘটনার গ্রাম্য শালিষের নামে গত এক মপ্তাহ ধরে চলছে নানা দেন দরবার। ধর্ষক প্রভাবশালী এবং শিশুটির পরিবার দরিদ্র হওয়ায় সুযোগ নিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য চলছে মোটা অংকের টাকার দেন দরবার। দহপাড়া গ্রামের প্রধানরা ধর্ষনের ঘটনাটির গ্রাম্য শালিশে বিচারের নামে কেবল সময় ক্ষেপন করছে। ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কতিপয় নেতাকর্মীদের ইন্দনে ধর্ষকের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে পুরো বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে। মঙ্গলবার রাতে উভয় পক্ষ কে নিয়ে দহপাড়া গ্রামের প্রধানরা শালিষে বসার কথা ছিল। কিন্তু থানা পুলিশ প্রধানদের ফোন করে শালিষ করতে নিষেধ করায় তা আর হয়নি। কিন্তু গোপনে মোটা অংকের টাকা নিয়ে পুরো বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।
এ বিষয়ে মুঠোফোনে কথা হলে দহপাড়া গ্রামের গ্রাম্য প্রধান মো.আব্দুর রব জানান,প্রতিবন্ধি শিশু ধর্ষনের ঘটনাটি সত্য। বিচারের নামে টাকা দিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে। তাকে শালিষে যাওয়ার জন্য ঢাকা হলেও তিনি যাননি বলে জানান।
উল্লাপাড়া মডেল থানার উপ পরিদর্শক মো.আসলাম উদ্দিন জানান,ঘটনাটি লোক মুখে শুনে গ্রাম্য প্রধানদের শালিষ করতে বাধা দিয়ে থানায় আসতে বলেছি। কিন্তু ওই মেয়ের বাবা বা প্রধানরা কেউ থানায় এখনো কোন অভিযোগ নিয়ে আসেনি।
উল্লাপাড়ার পূর্নিমাগাঁতী ইউপি চেয়ারম্যান আল আমিন সরকার জানান,বিষয়টি তিনি লোকমুখে শুনেছেন।