এক নজরে কফি আনানের বর্ণাঢ্য জীবন

১৮ আগস্ট, ২০১৮   |   thepeoplesnews24

সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্ক

আফ্রিকান বংশোদ্ভূত জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন। শনিবার (১৮ আগস্ট) সুইজারল্যান্ডে জাতিসংঘের সপ্তম এই মহাসচিব ৮০ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বিডি২৪লাইভ ডট কমের পাঠকদের জন্য এক নজরে কফি আনানের বর্ণাঢ্য জীবন।

কফি আত্তা আনানের জন্ম ১৯৩৮ সালে ঘানার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কুমাসিতে। তাঁর বাবা ছিলেন দেশটির একজন প্রাদেশিক গভর্নর। আনান ছিলেন বোন ইফুয়া আত্তার যমজ। শিক্ষা জীবন কাটে ঘানাতেই। তবে পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাকালেস্টার কলেজ থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নেন। ১৯৬২ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বাজেট অফিসার হিসেবে শুরু করেন কর্মজীবন।

১৯৯৭ সালে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকান হিসেবে জাতিসংঘের সপ্তম মহাসচিবের দ্বায়িত্ব নেন কফি আনান। ২০০১ সালে পান নোবেল শান্তি পুরস্কার।

জাতিসংঘের মহাসচিব থাকাকালে ইরাক যুদ্ধ ও এইডস মহামারি- এ দুটি সংকটে পড়েছিল বিশ্ব। এর মধ্যে ইরাক যুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিবাদে জড়ান আনান। জেরে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন হারান এবং অবশেষে ২০০৬ সালে পদত্যাগ করেন তিনি।

বিবিসির সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে ইরাক যুদ্ধকে অবৈধ যুদ্ধ বলেছিলেন আনান।

কেনিয়ার রাইলা ওডিঙ্গা ও মাওয়াই কিবাকির মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘাত থামাতে মধ্যস্থতা করেছিলেন কফি আনান। সিরিয়া যুদ্ধে তাকে বিশেষ দূত নিয়োগ দেয় জাতিসংঘ ও আরব লিগ।

এ ছাড়া মিয়ানমারে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে গঠিত আন্তর্জাতিক কমিশনের নের্তৃত্ব ছিলেন আনান। রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দেয়ার সুপারিশ করা এ কমিশন পরিচিতি পায় ‘আনান কমিশন’ হিসেবে।

ব্যক্তিগত জীবনে দু’বার বিয়ে করেছেন কফি আনান। ১৯৬৫ সালে তিনি তিতি আলাকিজাকে বিয়ে করেন। তাদের দু’সন্তানও হয়। তবে ১৯৮৩ সালে তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

তিতির সঙ্গে বিচ্ছেদের পর নেইন লাগেরগ্রেনকে বিয়ে করেন আনান।